চক্ষু চিকিৎসক যে গুরুত্বপূর্ণ কথাগুলো বলেন না !

Post Image

বার্ষিক চোখ পরীক্ষা অথবা চোখের সমস্যা নিয়ে চিকিৎসকের কাছে গেলে তিনি আপনাকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ দিতে পারেন। কিন্তু এমনও কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা আছে যা সাধারণত চোখের চিকিৎসক রোগীকে বলেন না। যেমন-  

অবশ্যই সানগ্লাস পরতে হবে
অধিকাংশ মানুষ জানেন, সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি ত্বকের ক্ষতি করতে পারে, কিন্তু তারা এটা অনুধাবন করেন না যে, এটি চোখের জন্যও ক্ষতিকর। তাই আপনার চোখকে সূর্যালোক থেকে রক্ষা করতে সানগ্লাস ব্যবহার করুন। অনেকে ফ্যাশন হিসেবে সানগ্লাস পরেন। তারা আসলে নিজের অজান্তেই চোখের যত্ন নিচ্ছেন। সেক্ষেত্রে এমন সানগ্লাস পরুন যেটাতে পুরু পাশ রয়েছে অথবা এটি যেন চোখের আশপাশ ঢেকে রাখে। যদি কন্টাক্ট লেন্স পরেন, তাহলে ইউভি কোটিং করুন।

চোখের স্বাস্থ্যে ভালো খাবার 
প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম প্রচলিত একটি কথা হলো- চোখের স্বাস্থ্যের জন্য সবচেয়ে ভালো খাবার- গাজর। কিন্তু এটি মিথ ছাড়া কিছুই নয়। আপনার চোখের জন্য সবচেয়ে ভালো খাবার হলো- পালংশাক, পাতাকপি ও অন্যান্য গাঢ় সবুজ বর্ণের শাক।

সবসময় পোলারাইজড সানগ্লাস ভালো নয়
আলোর অতি উজ্জ্বলতা কমাতে পোলারাইজড সানগ্লাস চমৎকার, কিন্তু এটি সেলফোনের এলসিডি অথবা নেভিগেশন সিস্টেম দেখা কঠিন করে তোলে। চোখে পোলারাইজড সানগ্লাস থাকলে এটিএম স্ক্রিন দেখাও কঠিন। সুতরাং জেনেবুঝে সানগ্লাস পরতে হবে।

অল্প আলোতে পড়লে চোখের কতটা ক্ষতি
ডিম লাইট অথবা অল্প আলোতে পড়লে চোখের ক্ষতি হবে না। সবচেয়ে খারাপ প্রতিক্রিয়া যা ঘটতে পারে তা হলো মাথাব্যথা। আর হ্যাঁ, ডা. জেনাইস জুরকুস, অপটোমেট্রি বিশেষজ্ঞ আমাদের জানাচ্ছেন, যেকোনো ধরনের আই ড্রপ রেফ্রিজারেটরে সংরক্ষণ করলে চোখে ড্রপ দেয়ার পর যে অস্বস্তি হয় তা হ্রাস পায়। তবে সব আই ড্রপ এক নয়। চোখে নতুন কোনো সমস্যা দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া পূর্বের ব্যবহৃত আই ড্রপ কখনও ব্যবহার করবেন না।

উপসর্গের জন্য অপেক্ষা 
চোখের সমস্যার উপসর্গ প্রকাশ না পাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা ঠিক নয়। কিছু অন্ধত্ব সৃষ্টিকারী রোগ দৃষ্টিশক্তি ধ্বংস করার পূর্বে খুব অল্পসংখ্যক উপসর্গ প্রকাশ করে। চোখে কোনো সমস্যা তৈরি হচ্ছে কিনা তা প্রারম্ভিক পর্যায়ে জানার একমাত্র উপায় হলো- বার্ষিক চোখ পরীক্ষা।

কন্টাক্ট লেন্স
ঘুমানোর পূর্বে অবশ্যই কন্টাক্ট লেন্স খুলে ফেলুন। কন্টাক্ট লেন্স নিয়ে ঘুমালে ইনফেকশনের ঝুঁকি ১০ থেকে ১৫ গুণ বেড়ে যায়। আরেকটি কথা, চশমা পরিষ্কার করার জন্য কখনো টিস্যু অথবা টয়লেট পেপার ব্যবহার করবেন না। কাগজ তৈরি করা হয় কাঠ থেকে এবং এটি লেন্সে দাগ সৃষ্টি করতে পারে। বরং টাই দিয়ে চশমা পরিষ্কার করা যেতে পারে। কারণ এটি সিল্ক ও মসৃণ। চশমা পরিষ্কারের জন্য বিশেষভাবে তৈরিকৃত কাপড় বা মাইক্রোফাইবার ক্লিনিং ক্লথ ব্যবহার করতে পারেন

\
সম্পাদক ও প্রকাশক
অ্যাড.এ.জেড.এম. আব্দুস সবুর
নির্বাহি সম্পাদক : অ্যাড. নূরে আলম সিদ্দিক
যোগাযোগ : ৮৩ বি, মৌচাক টাওয়ার, মালিবাগ মোড়, ঢাকা -১২১৭ । নিউজ রুম মোবাইল :০১৭৯৬-২০৬০৬৪
নিউজ রুম ইমেইল : news.deshbd24@gmail.com