প্রাণের ব্যাংক হিসাব তলব

Post Image

প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের ১১ প্রতিষ্ঠানের অর্থ লেনদেনের বিস্তারিত তথ্য চেয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এনবিআরের নিরীক্ষা, গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর, মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট গোয়েন্দা) সম্প্রতি এ সংক্রান্ত চিঠি বিভিন্ন ব্যাংকের কাছে পাঠায়।

লেনদেনের হিসেব চাওয়া ১১ প্রতিষ্ঠান হল : প্রাণ ফুডস লি., বঙ্গ বিল্ডিং ম্যাটেরিয়াল লি., রংপুর ফাউন্ড্রি লি., রংপুর মেটাল ইন্ড্রাস্ট্রিজ লি. (ট্রেডিং ইউনিট), রংপুর মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লি. (ইউনিট-২), রংপুর মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লি. (ইউনিট-৩), রংপুর মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লি. (কাঁচপুর ইউনিট), রংপুর মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লি. (ভুলতা-১ ইউনিট), রংপুর মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লি. (ভুলতা-২ ইউনিট), প্রাণ আরএফএল প্লাস্টিক লি. এবং প্রাণ-আরএফএল এক্সপোর্ট লি.।

চিঠিতে বলা হয়, মূল্য সংযোজন কর আইন-১৯৯১ এর ধারা ২৬(ক)(২) অনুযায়ী রাজধানীর বাড্ডায় অবস্থিত প্রাণ আরএফএল গ্রুপের কর্পোরেট সদর দফতর ‘প্রাণ আরএফএল সেন্টার’ নামক প্রতিষ্ঠানের ওপর তদন্ত সম্পন্ন করার লক্ষ্যে একটি তদন্ত দল গঠন করা হয়। ওই দল মূল্য সংযোজন কর ১৯৯১-এর ক্ষমতাবলে ২৬ ধারায় প্রতিষ্ঠানটিতে আকস্মিক পরিদর্শন করে। এ সময় জব্দ করা দলিলাদি প্রাথমিক যাচাই করে দেখা যায়, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের বিভিন্ন অঙ্গপ্রতিষ্ঠানের লেনদেন আপনার ব্যাংকের মাধ্যমে হয়ে আসছে। সরকারের রাজস্ব সুরক্ষা এবং অধিকতর তদন্তের স্বার্থে ২০১৩ সালের জুলাই থেকে ২০১৮ সালের জুন পর্যন্ত আপনার ব্যাংকে প্রতিষ্ঠানটির লেনদেনের সব তথ্য দেয়ার অনুরোধ করা হল।

চিঠিতে আরো বলা হয়, প্রাণ আরএফএল গ্রুপের মাসভিত্তিক ব্যাংকে কত টাকা জমা, উত্তোলন ও স্থিতি- তার হিসাব, চেক নম্বর ও তারিখ, চেক প্রদানকারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের অ্যাকাউন্টের নাম ও নম্বর এবং সংশ্লিষ্ট ব্যাংক এবং ব্যাংকের শাখার নাম উল্লেখ করতে হবে।